২৮ বুদ্ধ জাদি উৎসর্গ, গণপ্রব্রজ্যা ও উপসম্পদা অনুষ্ঠান পালিত


অহিংসার নীতি মেনে চললে শান্তি ফিরে আসবে, অশান্তি দূর হবে

 

সংবাদ বিভাগ, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

সংবাদদাতা:  সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল

Bathbunia pic . 1

বৌদ্ধ ধর্মের সম্প্রীতি ও অহিংসার নীতি মেনে চললে পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি ফিরে আসবে, অশান্তি দূর হবে। এখানে সকল ধর্ম-বর্ণের মানুষ নিজ নিজ অধিকার নিয়ে বসবাস করতে পারবে। ধর্ম লংঘনকারী, অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের হিংসার রাজনীতির পরাজয় হবে, মানুষের বিজয় হবে। গণতন্ত্রের ও শান্তিবাদী জনগণের বিজয় হবে। পার্বত্য জনগণের প্রতি প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতার কারণে আজকে এ অঞ্চলে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। জনগুরুত্ব অনুসারে কোটি কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। আজকে পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারা দেশে শান্তি, সমৃদ্ধি ও উন্নয়নের বিরুদ্ধে যারা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত আছে তাদেরকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে প্রতিরোধ করতে হবে।

গতকাল মঙ্গলবার রাঙ্গামাটির কাউখালী উপজেলাধীন বেতবুনিয়া বৌদ্ধ বিহার এলাকায় ২৮ বুদ্ধ জাদি উৎসর্গ, গণপ্রব্রজ্যা ও উপসম্পদা অনুষ্ঠানে প্রধান দায়ক হিসাবে বক্তব্য প্রদানকালে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার উল্লিখিত কথা বলেন।

রামগড় মহামুণি বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত সুরিয়িন্দ্র মহাথেরো -এর সভাপতিত্বে ২৮ বুদ্ধ জাদি উৎসর্গ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কাপ্তাই চিৎম্রং বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ, রাজ নিকার মার্গ মহাসংঘনায়ক ভদন্ত পামোক্ষা মহাথেরো, আশীর্বাদ-দাতা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন নারাংগিরি হেডম্যানপাড়া বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত পঞ্‌ঞাকবি মহাথেরো। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি জনবল বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত চন্দ্রমনি মহাথেরো, কাউখালী পশ্চিম লুঙ্গীপাড়া বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত সাসনা মহাথেরো, বান্দরবান উজানীপাড়া বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত চান্দাওয়ারা মহাথেরো, যুক্তরাজ্যের বার্মিংহাম এর ভদন্ত ড. নাগাসেনা মহাথেরো। ধর্ম দেশনাকারী হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, টেকনাফ অশোকরাম বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত কবিসারা মহাথেরো, গহিরা অঙ্গুরঘোনা জেতবনারাম বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত সত্যপাল থেরো।

উৎসর্গ অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের সদস্য অংসুই প্রু চৌধুরী, জেলা পরিষদ সদস্য বৃষকেতু চাকমা, কাউখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস,এম চৌধুরী, কাউখালী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান অং চা প্রু মারমা। অনুষ্ঠানে কাউখালী উপজেলার অনেক গণ্যমান্য ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন।

দীপংকর তালুকদার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পার্বত্য অঞ্চলের উন্নয়নে খুবই আন্তরিক। শেখ হাসিনা সরকার পার্বত্য অঞ্চলে সকল সম্প্রদায়ের মানুষের কথা চিন্তা করে মসজিদ, মন্দির, বৌদ্ধ বিহার ও গীর্জাসহ সকল সম্প্রদায়ের উপসনালয়কে নতুন রূপ দিয়েছেন। সকল সম্প্রদায়ের মানুষ যাতে নিরাপদে নির্বিঘ্নে তাদের সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করতে পারে তার জন্য সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন। আলোচনা সভা শেষে পঞ্চশীল প্রার্থনা, বুদ্ধ মূর্তিদান, সংঘদান সহ বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে ২৮ বুদ্ধ জাদি উৎসর্গ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

পরে সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার এবং কাপ্তাই চিৎম্রং বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ও রাজ নিকার মার্গ মহাসংঘনায়ক ভদন্ত পামোক্ষা মহাথেরো যৌথভাবে ২৮ বুদ্ধ জাদি বিহারের ফলক উন্মোচন করেন এবং হাজার প্রদীপ প্রজ্বলনের মধ্য দিয়ে ৩ দিন ব্যাপী অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

Print Friendly, PDF & Email

Add Comment