হরতাল-অবরোধ বন্ধে আদালতের নোটিশ খালেদার কার্যালয়ে

সংবাদ বিভাগ, শুক্রবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম :

High Court

গুলশান থেকে: হরতাল-অবরোধের নামে সহিংসতা বন্ধ করতে আদালতের জারি করা রুলের নোটিশ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়‍ার কার্যালয়ে পৌঁছেছে।
আজ শুক্রবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সোয়া ৫ টায় সুপ্রিম কোর্টের রিট সেকশনের পিয়ন মো. হুমায়ুন ইসলাম খান নোটিশটি বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদারের হাতে পৌঁছে দেন।
২০ দলীয় জোটের চলমান অবরোধ-হরতালে নাশকতার চিত্র তুলে ধরে হরতাল-অবরোধে সন্ত্রাস, নাশকতা বন্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি ঢাকার কেরানীগঞ্জের ব্যবসায়ী শাহীনুর রহমান শাহীন হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করেন। রিটে স্বরাষ্ট্র সচিব, আইন সচিব, পররাষ্ট্র সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, র‍্যাবের মহাপরিচালক, বিজিবির মহাপরিচালক, ডিএমপি কমিশনার, ২০ দলীয় জোটের প্রধান খালেদা জিয়াসহ ১৬২ জনকে বিবাদী করা হয়।
রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ হরতাল-অবরোধের মতো রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে সহিংসতা, নাশকতা ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে সরকারকে নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নির্বিঘ্ন করতে এবং পরীক্ষায় বিঘ্ন সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ারও নির্দেশ দেওয়া হয়।
জারি করা রুলে আদালত হরতাল-অবরোধের নামে মানুষ হত্যা, জ্বালাও-পোড়াও, মানুষের জানমালের নিরাপত্তা ধ্বংস এবং সহিংসতাকে কেন অবৈধ ও অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চান। পাশাপাশি হরতাল-অবরোধের নামে হুমকি, সহিংসতা এবং ০৫ জানুয়ারির অবরোধ ডাকা এবং তা অব্যাহত রাখাকে কেন অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণা করা হবে না তা-ও জানতে চান।

এছাড়া, ০৫ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত হরতাল-অবরোধে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দিতে ২০ দলীয় জোটনেতা খালেদা জিয়াসহ হরতাল আহ্বানকারীদের কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না তা-ও জানতে চান আদালত। আদালতের পক্ষ থেকে চার সপ্তাহের মধ্যে বিবাদীদের এসব রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

Print Friendly, PDF & Email

Add Comment